মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C

বার আউলিয়ার মাজার

 

শিকদার সাহেবের মাজার আজ থেকে প্রায় ৮০০ বছর পূর্বে বাগদাদ থেকে পবিত্র ইসলাম ধর্ম প্রচার করার জন্য হযরত হোসেন শিকদার (রাঃ) বঙ্গদেশে আগমন করেন এবং মহাকালী ইউনিয়ন এর অন্তর্গত কেওয়ার গ্রামে বসবাস করতে থাকেন। তিনি ছিলেন অত্যন্ত ধর্মপ্রান সাধক ব্যক্তি। তিনি ওফাৎ গ্রহনের পরে এই কেওয়ার গ্রামেই তাকে সমাহিত করেন। প্রতিদিন দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে অসংখ্য মানুষ তার মাজার শরীফ জিয়ারত করতে আসেন। বার আউলিয়ার মাজার মুন্সীগঞ্জ জেলার সদর উপজেলাধীন মহাকালী ইউনিয়নের কেওয়ার গ্রামের অন্তর্গত তেতুল তলায় পবিত্র বার আউলিয়াদের মাজার শরীফ অবস্থিত। প্রায় ১০০০ বছর পূর্বে হিজরী ৪২১ সনে ৯৭৪ খ্রিঃ সুদূর আরব দেশ হতে পবিত্র ইসলাম ধর্ম প্রচার করার জন্য মহানবী হযরত মোহাম্মদ (সঃ) এর আনসার ও মুজাহিদ হিসেবে আওলিয়াগণ বাংলাদেশের এই স্থানে আগমন করেন। পূর্বে এই স্থানটি কালীদাস সাগর ছিল। পরবর্তীতে জঙ্গলাপূর্ন পতিত ভূমিতে পরিনত হলে ১২ জন আউলিয়া এই স্থানটিকে দ্বীন ইসলাম প্রচারের কেন্দ্র হিসাবে ইমারত, দীঘি ও এবাদতখানা প্রতিষ্ঠিত করেন এবং এখানে তারা ওফাৎ গ্রহণ করেন।

 

 

 

কিভাবে যাওয়া যায়: 
ঢাকার পার্শ্ববর্তী জেলা মুন্সীগঞ্জ। মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার মহাকালী ইউনিয়নের কেওয়ার গ্রামে বার আউলিয়ার মাজারটি অবস্থিত। সড়কপথে ঢাকা থেকে মুন্সীগঞ্জের দূরুত্ব মাত্র ২৩ কিলোমিটার। তবে এই মাজারে আসার জন্য আরো ০৯ (প্রায়) কিলোমিটার দক্ষিণ-পূর্ব দিকে আসতে হবে। ঢাকা হতে সকালে এসে মাজার জিয়ারত করে বিকেলেই ঢাকায় ফিরে আসা যাবে। সড়কপথে যেতে কষ্ট হবে না। তবে নৌপথে গেলে সময়ও বাচঁবে এবং যানজট এড়িয়ে নদী পথের সৌন্দর্য অবগাহন করে স্বাচ্ছন্দের সাথে পৌছানো যাবে। সদর ঘাট থেকে মুন্সীগঞ্জগামী লঞ্চে ২ ঘন্টার মধ্যেই পৌছে যাওয়া যাবে মুন্সীগঞ্জ লঞ্চ ঘাটে। মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলা হইতে রিক্সায় মহাখালী ইউনিয়নের কেওয়ার গ্রামে বার আউলিয়ার মাজার অবস্থিত। ভাড়া ৩৫-৪০ টাকা।